হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে ভারত

হোয়াটসঅ্যাপের সবচেয়ে বড় বাজার হচ্ছে ভারত। দেশটিতে ৪০ কোটির বেশি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। ফেসবুকের মালিকানাধীন এই মেসেজিং সেবাটির কর্তৃপক্ষ বলেছে, তাদের মূল লক্ষ্য ছিল ভারতে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে ক্ষতিকর ও অনাকাঙ্ক্ষিত বার্তা আদান–প্রদান কমানো।নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগে গত মে ও জুন মাসে ভারতে ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। এর কারণ হিসেবে তারা বলেছে, একজন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী সর্বোচ্চ যতজনকে বার্তা ফরোয়ার্ড করতে পারেন, তার সীমা লঙ্ঘন করেছেন এসব অ্যাকাউন্টধারীর বেশির ভাগ।

গত ১৫ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত ভারতে অস্বাভাবিক ও উচ্চহারে বার্তা পাঠানোর অভিযোগে ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বাতিল করা হয়।ভারতে অনলাইনে ভুয়া খবর ও তথ্য ছড়িয়ে পড়ায় দীর্ঘদিন ধরেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপে ছড়ানো বিভিন্ন ভুয়া ও প্রতারণাপূর্ণ লিংক মুহূর্তেই হাজার হাজার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে, যা বাস্তবে ঠেকানো প্রায় অসম্ভব।

হোয়াটসঅ্যাপ এমন এক সময়ে তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, যখন ভারতে প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠানগুলো নতুন প্রযুক্তি আইনের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকেও সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বিষয়টি বাক্‌স্বাধীনতা ও ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন বলে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। সমালোচকেরা বলছেন, এতে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট সরিয়ে ফেলার সুযোগ পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.