সকল সন্ত্রাসী সংগঠনকে নির্মূলের করবে তুরস্ক

তুরস্কের নিরাপত্তার বিরুদ্ধে হুমকিমূলক সব সন্ত্রাসী সংগঠনের বিরুদ্ধে তুরস্ক লড়াই অব্যাহত রাখবে বলে কঠিন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান।১৫ জুলাই তুরস্কে সামরিক অভ্যুত্থান চেষ্টা প্রতিরোধের পঞ্চমতম বার্ষিকী স্মরণে বুধবার ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (একেপি) পার্লামেন্ট সদস্যদের নিয়ে এক বৈঠকে বক্তব্যে এই কথা বলেন তিনি।তিনি বলেছেন, দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি সৃষ্টিকারী দেশীয় বা আন্তর্জাতিক যে কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীই হোক না কেন, তাদের অক্ষম করার সামর্থ্য ও ইচ্ছাশক্তি তুরস্কের আছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সীমানার বাইরে যেখানেই হুমকি রয়েছে, সেখান থেকেই আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা শুরু হবে। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১৫ জুলাই রাতে তুরস্কে সামরিক বাহিনীর ক্ষুদ্র একটি অংশ অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে। ঘটনার পরপরই অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে তুরস্কের শহরগুলোর রাস্তায় নেমে পড়ে গণতন্ত্রকামী সাধারণ মানুষ। এসময় অভ্যুত্থানকারীদের আক্রমণে ২৫১ জন নিহত ও অন্তত দুই হাজার দুই শ’ জন আহত হয়। পরে তুর্কি জনতার বিক্ষোভের মুখে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয় অভ্যুত্থানকারীরা।

বর্হিবিশ্বে তুর্কি কূটনীতিক মিশনে সামরিক শক্তি জোরদার করার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের সীমানার বাইরে যেখানেই হুমকি রয়েছে, সেখান থেকেই আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা শুরু হবে।’

তুর্কি জনতার বিক্ষোভের মুখে শেষে অভ্যুত্থানকারীরা আত্মসমর্পণ করে। তখন থেকে তুরস্কে ১৫ জুলাই দিনটি গণতন্ত্র ও জাতীয় ঐক্য দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।
সূত্র : ডেইলি সাবাহ

Leave a Reply

Your email address will not be published.