তুফান ঘটকের দিনকাল

রাজশাহী শহরের সব মানুষের মুখে এক নাম তুফান ঘটক। রাজশাহী নগরের কলাবাগান এলাকায় তাঁর চেম্বার। তাঁর আসল নাম যে সাইদুর রহমান, কিন্তু তিনি তুফান ঘটক হিসেবেই সবার কাছে পরিচিত।ঘটকের চেম্বারে টেবিলের উপর তাঁর ভিজিটিং কার্ড ও পাত্রপাত্রীদের ফাইলে ঠাসা। দেয়ালে নিয়মকানুন লেখা। কোন অঞ্চলের এন্ট্রি ফি কত। এন্ট্রি মানে পাত্র-পাত্রীর জন্য ফরমাশ দিলেই এন্ট্রি ফি দিতে হবে।

ঘটক তুফান বলেন,” লকডাউনের মধ্যেও দুটি বিয়ে দিয়েছেন। এক বিয়ের ছেলে থাকতেন কানাডায়। লকডাউনের আগে এসেছিলেন। সেরে দিয়েছেন। তুফান বলেন, প্রশাসনের সবাই তাঁর পরিচিত। কোনো ঝামেলা হলে তাদের সহযোগিতা পাওয়া যায়। খুবই স্বল্প পরিসরে রেজিস্ট্রি সেরে নিয়েছেন। অন্য আনুষ্ঠানিকতা করা হয়নি।”

তিনি আরো বলেন,” কে কখন মারা যান, অভিভাবকেরা এই অনিশ্চয়তায় অস্বস্তি বোধ করছেন। তাই মেয়ের বিয়ে দিয়ে দিচ্ছেন। লকডাউনের আগপর্যন্ত স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বিয়ে বেশি হয়েছে।”

সম্প্রতি তুফান ঘটকের মেয়ে মারা যায়। অনেক চিকিৎসা করেও বাচাতে পারলেন না। মেয়ের চিকিৎসায় অনেক ব্যয় হওয়ায় তিনি এখন অসহায়। সকলের কাছে তিনি দোয়া চেয়েছেন ।

 

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.