যুদ্ধবিরতির চুক্তির আশা

আন্তর্জাতিক চাপ ও আহ্বান উপেক্ষা করে ফিলিস্তিনের গাজায় নির্বিচার বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। যুদ্ধবিরতির ব্যাপারে হামাসের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এমন আশাবাদ ব্যক্ত করলেও ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গতকাল বুধবার জানিয়েছেন যে ইসরায়েলি নাগরিকদের জন্য শান্তি ও নিরাপত্তা ফিরিয়ে না আনা পর্যন্ত হামলা চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তিনি সংকল্পবদ্ধ। দু-এক দিনের মধ্যে যুদ্ধবিরতির আশা করছেন হামাসের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা।

ভোরে গাজার উত্তরে হামাসের কথিত স্থাপনা লক্ষ্য করে শতাধিক বিমান হামলা চালায় ইসরায়েল। জবাবে গাজা থেকে ইসরায়েল অভিমুখে রকেট ছোড়ে ফিলিস্তিনি সশস্ত্র সংগঠনগুলো।গাজায় ইসরায়েলি সহিংসতায় এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ২২৭ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ১০০ জনের বেশি নারী ও শিশু। আহত হয়েছেন দেড় হাজারের মতো ফিলিস্তিনি।

হামাসের রাজনৈতিক কর্মকর্তা মুসা আবু মারজৌক  বলেন, “ আমি মনে করি, যুদ্ধবিরতির ব্যাপারে চলমান প্রচেষ্টা সফল হবে। এক বা দুদিনের মধ্যে যুদ্ধবিরতি হওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। আর এই যুদ্ধবিরতি পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতেই হবে।“সহিংসতা বন্ধের জন্য ইসরায়েল ও হামাস উভয় পক্ষের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ছে। তার মধ্যে হামাসের রাজনৈতিক কর্মকর্তা মুসার কাছ থেকে যুদ্ধবিরতির বিষয়ে এমন ইতিবাচক মন্তব্য এল। যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠায় তারা ইসরায়েলের প্রতিবেশী দেশগুলো, মিসর ও জর্ডানের সঙ্গে কাজ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.