বগুড়ায় যাত্রীবাহী চলন্ত বাসে অগ্নিকাণ্ড

বগুড়ার দুপচাঁচিয়ার মাঠের পুকুর এলাকায় বুধবার বিকালে যাত্রীবাহী চলন্ত বাসে আগুন লেগেছে। এতে সবাই প্রাণে বেঁচে গেলেও নামতে গিয়ে ঠেলাঠেলিতে অন্তত ১৫ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে গুরুতর এক দম্পতিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুপচাঁচিয়া ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের লিডার আবু মোত্তালিব জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এতে প্রায় দুই লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বগুড়া ছেড়ে আসা জয়পুরহাটের আক্কেলপুরগামী প্রিন্স পরিবহনের একটি বাস (জয়পুরহাট-ব-০৫-০০০৩) বুধবার বিকাল ৪.২০ মিনিটে বগুড়া-আক্কেলপুর সড়কে বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার মাঠের পুকুর এলাকায় পৌঁছে। এসময় বিকট শব্দে বাসের পেছনের একটি টায়ার ফেটে যাওয়ার পরপরই বাসে আগুন ধরে যায়। আতঙ্কিত যাত্রীরা দ্রুত বাস থেকে নামতে শুরু করেন। জানালা ও দরজা দিয়ে নামতে গিয়ে ঠেলাঠেলিতে অন্তত ১৫ যাত্রী আহত হন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত হন বগুড়ার এনামুল হক (৫০) ও তার স্ত্রী হাসনা বানু (৪৫)। তাদের বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

খবর পেয়ে দুপচাঁচিয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে প্রায় ৪৫ মিনিটের চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলেন। ততক্ষণের বাসের অধিকাংশ পুড়ে যায়।

দুপচাঁচিয়া ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের লিডার আবু মোত্তালিব জানান, টায়ার ফেটে যাওয়ার পর গ্যাস সিলিন্ডারে আগুন লাগে। কোনও নাশকতা নয়, সাধারণ দুর্ঘটনা।  আগুনে বাসটি পুড়ে প্রায় দুই লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাড়াহুড়ো করে বাস থেকে নামতে গিয়ে ২-৩ জন আহত হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.