শনাক্ত কমেছে ভারতে

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২ হাজার ৬৪০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৬৭ জনের। ৯১ দিনের মধ্যে প্রথম দৈনিক ৫০ হাজারের নিচে করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনায় সংক্রমিত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ৯৯ লাখ ৭৭ হাজার ৮৬১। মারা যাওয়া মানুষের সংখ্যা ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৩০২। ভারতে টানা ১৫ দিন ধরে ৫ শতাংশের নিচে করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার কমে ২ দশমিক ৫৬ শতাংশ হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী, কোনো দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে কি না, তা বোঝার একটি নির্দেশক হলো রোগী শনাক্তের হার।

ভারতে সংক্রমণ নিম্নমুখী থাকলেও আগামী ছয় থেকে আট সপ্তাহের মধ্যে দেশটিতে করোনার তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে বলে সতর্ক করেছেন অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সের (এইমস) প্রধান চিকিৎসক রণদীপ গুলেরিয়া। ভারতে করোনার নতুন ধরন ডেলটা প্লাসের কারণে এ আশঙ্কার কথা প্রকাশ করেছেন গুলেরিয়া।গত ৪ এপ্রিল ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই কোটির মাইলফলক ছাড়ায়। গত ২৩ মে করোনায় মৃত্যু তিন লাখের মাইলফলক ছাড়ায়।

৭ মে ভারতে প্রথম এক দিনে করোনায় চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এরপর একাধিক দিন দেশটিতে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। ৯ জুন দেশটিতে রেকর্ড ছয় হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়। ৩০ এপ্রিল ভারতে প্রথম এক দিনে চার লাখের বেশি মানুষের করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে।

যুক্তরাষ্ট্রের পর ভারত। ভারতের পর ব্রাজিল। আর মৃত্যুর দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পর রয়েছে ভারত। ভারতে সংক্রমণ ‘বিস্ফোরণের’ জন্য করোনার ডেলটা বা ভারতীয় ধরনকে অনেকাংশে দায়ী করা হয়।করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানলে মাস কয়েক আগে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য বিধিনিষেধ আরোপ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *