ক্লাব থেকে প্রাপ্য সম্মানটা পাননি জিদান

খেলোয়াড় হিসেবে জিনেদিন জিদান দুর্দান্ত এক ক্যারিয়ার কাটিয়েছেন রিয়ালে। এএসকে জানিয়েছেন রিয়াল ছাড়ার কারণ, দীর্ঘ এক চিঠির মাধ্যমে। তাঁর ক্লাব ছাড়ার দায়টা একরকম রিয়ালের কাঁধেই চাপিয়েছেন এই ফুটবল কিংবদন্তি। জানিয়েছেন, প্রিয় ক্লাব তাঁর ওপর আর আস্থা রাখেনি, তাই ক্লাব ছাড়তে বাধ্যই হয়েছেন তিনি, ‘আমি ক্লাব ছেড়েছি, কিন্তু কখনোই অনুশীলন করাতে হাঁপিয়ে উঠিনি। মিলিয়ে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে জিনেদিন জিদানের সম্পর্ক ২০ বছরের মতো। এই দুই দশকে ফরাসি তারকা রিয়ালের ঘরের ছেলেই হয়ে গেছেন যেন।

কোচ হিসেবেও গড়েছেন ইতিহাস। খেলোয়াড়ি জীবনের সাফল্যকে ছাড়িয়ে গেছেন ডাগ-আউটে দাঁড়িয়ে। রিয়ালকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য জিদানের কিছু সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ছিল। সেগুলো বাস্তবায়নের জন্য ক্লাবের পক্ষ থেকে তেমন সাহায্য পাননি বলে জানিয়েছেন জিদান, ‘একটি নতুন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ক্লাবের পক্ষ থেকে যেমন সমর্থন দরকার, সেটি আমি পাচ্ছিলাম না রিয়ালের কাছ থেকে। আমি ফুটবল বুঝি। বুঝি রিয়ালের কী কী দরকার।

জিদান বলেন,” আমি জন্মেছি জেতার জন্যই। এখানে এসেছিলাম শিরোপা জেতার জন্য। কিন্তু তা সত্ত্বেও মানুষ, জীবন, আবেগের মতো বেশ কিছু জিনিস থাকে, যেগুলোর প্রতি খেয়াল রাখতে হয়। কোনো না কোনোভাবে আমার ঘাড়ে দোষ চাপানোর একটা প্রবণতা দেখেছি। ক্লাব ও ক্লাবের সভাপতির সঙ্গে কয়েক মাস ধরে আমার যেমন সম্পর্ক, সেটি একটু অন্য রকম হলেই ভালো লাগত।”

তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার অনন্য কীর্তিও গড়েছেন। তাঁর অর্জন এ যুগে অন্য অনেক কোচেরই নেই। এত অর্জনের পরেও ক্লাব থেকে প্রাপ্য সম্মানটা পাননি জিদান। ক্লাবের সবার মধ্যে একটা নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হয়েছে, পরিবেশ বিষিয়ে গেছে, ভুল–বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে। সাংবাদিকদের উদ্দেশেও কিছু বলতে চাই। আমি শতাধিক সংবাদ সম্মেলন করেছি, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা ফুটবল নিয়ে তেমন কথা বলিনি।

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *