বড় ধূমকেতু

আধুনিক ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ধূমকেতু আসছে সৌরজগতে। বৈজ্ঞানিক নাম সি/২০১৪ইউএন২৭১। সাধারণ ধূমকেতুর তুলনায় নতুন ধূমকেতুটি এক হাজার গুণ ভারী। এটি ধূমকেতু নাকি গ্রহাণু, সেটা তখনো বুঝে উঠতে পারেননি বিজ্ঞানীরা। কারণ, সাধারণত ধূমকেতুর লেজ বা পুচ্ছ থাকে। কিন্তু নতুন এই ধূমকেতুর লেজ নেই।

ধূমকেতুটি সে সময় উর্ট ক্লাউড থেকে বের হয়েছে মাত্র। ধূমকেতুটি যখন সৌরমণ্ডলে ঢুকে পড়বে, তখন সূর্যের তাপে বরফ গলতে শুরু করবে। সেই বরফ মহাকাশে ছড়িয়ে পড়তে পড়তে তৈরি হবে লেজ। বরফে ঢাকা এই ধূমকেতুর ব্যাস ১০০ থেকে ২০০ কিলোমিটার। এটি একটি সাধারণ ধূমকেতুর তুলনায় ১০ গুণ বেশি প্রশস্ত। পৃথিবী থেকে ধূমকেতুটির দূরত্ব অনেক বেশি। তাই এর আকার নির্ণয় করতেও বেগ পেতে হয়েছে বিজ্ঞানীদের।

২০১৪ সালে ডার্ক এনার্জি সার্ভের আর্কাইভ থেকে পাওয়া ছবিগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, নতুন ধূমকেতুটি সূর্য থেকে ২০ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল ইউনিট দূরে আছে। ১ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল ইউনিট = সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব বা ১ হাজার ৫০০ কোটি কিলোমিটার। ধূমকেতুটি ২০৩১ সালে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছে আসবে। তখন সূর্য থেকে এর দূরত্ব থাকবে ১১ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল ইউনিট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *