ফেঁসে যাচ্ছেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি

স্বামীর পর্নো কেলেঙ্কারিতে ফেঁসে যাচ্ছেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা।পর্নো ভিডিও তৈরি ও অ্যাপের মাধ্যমে সরবরাহের মামলায় গ্রেফতার ধনকুবের রাজ কুন্দ্রার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস হয়েছে।পর্ন ভিডিও কেসে নতুন চাঞ্চল্যকর সব তথ্য এসেছে মুম্বই পুলিশের হাতে।

 

স্বামীর পর্নো ব্যবসায় শিল্পা কোনোভাবে জড়িত কিনা, খতিয়ে দেখছে মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ।কারণ স্বামীর অধিকাংশ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত এই বলিউড অভিনেত্রী।যে কারণে শিল্পাকে ৫ ঘণ্টার বেশি সময় জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একই বক্তব্য দিয়েছেন শিল্পা। স্বামী পর্নো ব্যবসায় জড়িত নন বলে দাবি তার। তবে পুলিশের হাতে আসা ভিডিও ক্লিপগুলো কামোদ্দীপক বলে স্বীকার করেছেন তিনি। এর পরও স্বামীকে নির্দোষ বলে দাবি করেছেন শিল্পা।

 

বৃহস্পতিবার রাজ-শিল্পার বাড়িতে রেড করে পুলিশ। আর তারপরই তাদের হাতে উঠে আসে ৭০টি পর্ন ভিডিও। এগুলো বিভিন্ন প্রোডাকশন হাউজের সাহায্য নিয়ে তৈরি করেছিলেন রাজের প্রাক্তন পিএ উমেশ কামাত। রাজ ও উমেশের হোয়াটস অ্যাপ চ্যাট থেকে জানা গেছে গুগল প্লে স্টোর থেকে হটশটস অ্যাপ সরিয়ে দেয়ার পর তারা এই ভিডিওগুলো রাখার আরো সংরক্ষিত জায়গার খোঁজে ছিলেন। সাথে, সফট পর্ন ভিডিও তৈরির পরিকল্পনাও করছিলেন তারা।

 

রাজ-শিল্পার বাড়ি থেকে একটি সার্ভারও উদ্ধার করেছে পুলিশ। যা পাঠানো হয়েছে ফরেন্সিক ল্যাবে। খতিয়ে দেখা হবে এই সার্ভার থেকেই পর্নোগ্রাফি ভিডিও রাজ কুন্দ্রার ইউকের কোম্পানি কারনিনে পাঠানো হত কি না। ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিসে অফিস এবং জেএল স্ট্রিম-এর অফিসে তল্লাসি চালিয়েও রাজ কুন্দ্রা এবং তার ভায়রাভাই প্রদীপ বকসীর ব্যাপারে বেশ কিছু তথ্য এসেছে পুলিশের হাতে। যেখানে তারা কারনিন অ্যাপে আপলোড হওয়া পর্ন ক্লিপের সাবস্ক্রিপশন পেমেন্ট নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। আর সেখান থেকেই পুলিশের হাতে তথ্য উঠে এসেছে রাজ জানতেন হটশটস অ্যাপে যে ভিডিও আপলোড করা হয় তা বেআইনি।

 

রাজের ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের মাধ্যমে মুম্বাই পুলিশ জানতে পেরেছে,  এই অ্যাপে ২০ লাখের বেশি গ্রাহক ছিলেন। ১২১টি ভিডিও ১২ লাখ ডলারে (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০ কোটি ১৭ লাখ টাকা) বিক্রি করতে চলেছিলেন রাজ কুন্দ্রা! ‘হটশটস’ অ্যাপ বাতিল করে দিয়ে ব্যবসা চালানোর জন্য ‘বলিফেম’ নামে একটি অ্যাপ বাজারে আনার পরিকল্পনা করেছিলেন রাজ।

পর্নোগ্রাফির ব্যবসা করে পাওয়া অর্থ রাজ অনলাইন জুয়ায় খরচ করতেন বলে দাবি পুলিশের। পুলিশ তদন্তে জানতে পেরেছে যে, জুয়া কোম্পানি থেকে একটা মোটা অঙ্ক রাজের অ্যাকাউন্টে এসেছে।

 

পুলিশ বলছে, রাজের গ্রেফতারের পর তার বাড়ি ও অ্যাপ থেকে অনেক তথ্য মুছে ফেলা হয়েছে। প্রযুক্তি ব্যবহারে সেসব তথ্য পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চলছে।এদিকে রাজের গ্রেফতারির বিরুদ্ধে বোম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন তার আইনজীবী।রাজের আইনজীবীর অভিযোগ, তার মক্কেলের গ্রেফতার অবৈধ। ২৩ জুলাই রাজ আর এই মামলায় অন্যতম মূল অভিযুক্ত রায়ন থার্পের রিমান্ড শেষ হওয়ার কথা ছিল।

 

মুম্বই পুলিশের পক্ষ থেকে বারবার দাবি করা হচ্ছে, এই চক্রের মূল মাথা রাজই। আর তার বিরুদ্ধে ক্রাইম ব্রাঞ্চের হাতে যথেষ্ট প্রমাণও রয়েছে। তবে, সাথে একটা প্রশ্নও উঠছে, সত্যি কি এই ব্যাপারে কিছু জানতেন না শিল্পা। বাড়িতে থাকা পর্ন ভিডিওগুলোও কী করে তার অজানা থাকতে পারে! কিন্তু ক্রাইম ব্রাঞ্চের আবেদনে রাজ আর তার সঙ্গীর রিমান্ড ২৭ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।এখনো পর্যন্ত পর্নোগ্রাফি ভিডিওর র্যা কেটে রাজ কুন্দ্রাসহ ১১ জনকে মুম্বাই পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস, আনন্দবাজার পত্রিকা

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.