হজের প্রস্তুতি

হাজিদের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করতে ইতিমধ্যে হজের স্থানগুলোতে ৮৭৫টি বাতির স্তম্ভ স্থাপন করা হয়েছে। রাতের বেলা হাজিদের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে পবিত্র স্থান- আরাফা, মুজদালিফা ও মিনায় বাতির স্তম্ভ স্থাপন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে ৩৫৩টি প্যানেল স্থাপন করা হয়। এছাড়াও মক্কায় এক লাখ ২০ হাজারের বেশি লাইটিং ইউনিট আছে। এক লাখ ১০ হাজার লাইটিং পোল ও টাওয়ার আছে এবং এক হাজার ৯ শ টি বিদ্যুৎ সরবরাহের প্যানেল আছে।

এছাড়াও সার্বক্ষণিক বিদুৎ সরবরাহসহ হাজিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে মক্কার বিশেষজ্ঞ দল।পবিত্র মক্কা নগরী ও হজের স্থানগুলোর আলোকসজ্জা নিশ্চিত করতে বিশেষজ্ঞ ইউনিট সার্বক্ষণিক কাজ করছে।

এবারের হজে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে যারা হজের ১৪ দিন আগে করোনা টিকার উভয় ডোজ বা একটি ডোজ নিয়েছেন এবং ইতিপূর্বে হজ পালন করেননি তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। করোনা সংক্রমণ রোধে এবার সৌদিতে অবস্থানরত মাত্র ৬০ হাজার ব্যক্তি হজ পালন করতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.