৪৩ তম বিসিএসের আবেদন পড়েছে ৪ লাখের বেশি

৪৩তম বিসিএসের ১৮১৪ পদের বিপরীতে আবেদন পড়েছে  ৪ লাখের বেশি।গত বুধবার আবেদন শেষ হয়েছে।এর আগে কয়েক দফায় এই বিসিএসের আবেদনের সময় বাড়ানো হয়।পিএসসির জনসংযোগ দপ্তর থেকে আজ বৃহস্পতিবার জানানো হয়েছে, বুধবার (৩০ জুন) সন্ধ্যা ৬টায় শেষ হয়েছে ৪৩ তম বিসিএসে আবেদনের সময়সীমা। এই বিসিএসে আবেদন জমা পড়েছে ৪ লাখ ৩৫ হাজার ১৯০ টি।

 

৪১ তম বিসিএসে  ৪ লাখ ৭৫ হাজারের বেশি প্রার্থী আবেদন করেছিলেন আর ৪৩ তম বিসিএসের আবেদনের পড়েছে ৪ লাখ ৩৫ হাজার ১৯০ টি।আবেদনের হিসেবে ৪৩ তম বিসিএস দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অবস্থায় এবং ৪১ তম  ১ম ।৪৩তম বিসিএসের আবেদন গত বছরের ৩০ ডিসেম্বরে শুরু হয়।করোনার কারণে কয়েক দফা সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে পিএসসি ।২৭ জানুয়ারি পরিবর্তে ৩১ মার্চ করা হয়েছিল ফরম জমার শেষ দিন  কিন্তু  তা  আরেক দফায় বাড়িয়ে ৩১ মার্চ থেকে  ৩০ জুন করা হয়েছিল।

 

এদিকে করোনা পরিস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় যথাসময়ে ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি নেওয়া নিয়ে দ্বিধায় পড়েছে পিএসসি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সম্প্রতি পিএসসির চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন জানান

আমরা অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছি,অবস্থার উন্নতি হলেই আমরা বিলম্ব না করে ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার আয়োজন করতে পারব।কভিড-১৯ কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ।এ অবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের চূড়ান্ত (সেমিস্টার) পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি। অসংখ্য  শিক্ষার্থী ৪৩তম বিসিএসে আবেদন করতে পারবেন না। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় স্নাতক পরীক্ষা নেওয়া  শুরু করেছে তাই  ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষার আবেদনের সময়সীমা বাড়াতে পিএসসিকে অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিয়েছিল  ইউজিসি ।গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ইউজিসি চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের সঙ্গে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা স্বাস্থ্যবিধি মেনে গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।ইউজিসির অনুরোধে আবেদনের সময় ৩১ জানুয়ারির পরিবর্তে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বৃদ্ধি করে পিএসসি।

 

৪৩তম বিসিএসে মোট পদ

৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এ বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৮১৪ জন কর্মকর্তা নেওয়া হবে। এর মধ্যে প্রশাসন ক্যাডারে ৩০০, পুলিশ ক্যাডারে ১০০, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫, শিক্ষা ক্যাডারের জন্য ৮৪৩, অডিটে ৩৫, তথ্যে ২২, ট্যাক্সে ১৯, কাস্টমসে ১৪ ও সমবায়ে ১৯ জন নিয়োগ দেওয়া হবে।

 

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার নম্বর বণ্টন

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রার্থীকে ২০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার সময় ২ ঘণ্টা। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ২০০টি প্রশ্ন থাকবে। প্রার্থী প্রতিটি শুদ্ধ উত্তরের জন্য ১ নম্বর পাবেন। তবে ভুল উত্তর দিলে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত মোট নম্বর থেকে শূন্য দশমিক ৫০ নম্বর কাটা যাবে। প্রিলিমিনারির বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস পিএসসির ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

 

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বিষয় নম্বর বণ্টন

বাংলা ভাষা ও সাহিত্য ৩৫, ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য ৩৫, বাংলাদেশ বিষয়াবলি ৩০, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি ২০, ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব), পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ১০, সাধারণ বিজ্ঞান ১৫, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি ১৫, গাণিতিক যুক্তি ১৫, মানসিক দক্ষতা ১৫, নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসনের ওপর ১০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

 

পরীক্ষাকেন্দ্র

প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষা  ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.