নারী গৃহকর্মীদের নিরাপত্তায় সহায়তার আহ্বান রাষ্ট্রদূতের

আজ মঙ্গলবার সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের গভর্নর প্রিন্স সউদ বিন নায়েফ আল সউদের সঙ্গে সাক্ষাতকালে এ সহায়তা কামনা করেন।সৌদি আরবে কর্মরত নারী গৃহকর্মীরা বিভিন্ন কারণে গৃহকর্তার বাসা থেকে পালিয়ে পুলিশের কাছে আশ্রয় গ্রহণ করতে আসে। রাষ্ট্রদূত গভর্নরকে পালিয়ে আসা এ সকল নারী গৃহকর্মীদের ডিপোর্টেশন সেন্টার অথবা সেইফ হাউজে জায়গা প্রদান করার জন্য পুলিশের সহায়তা কামনা করেন।

দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের হাসপাতালের মর্গে যেসকল অবৈধ অভিবাসীদের মৃতদেহ সংরক্ষিত রয়েছে তার ফি মওকুফের অনুরোধ জানান রাষ্ট্রদূত। এ সকল অবৈধ অভিবাসীদের মৃতদেহ দেশে পাঠানোর জন্য দূতাবাসের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকার পরও হাসপাতালের ফির জন্য মরদেহ দেশে পাঠানো অথবা সৌদি আরবে দাফনের ক্ষেত্রে জটিলতা সৃষ্টি হয়। ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, করোনাকালে অনেক শ্রমিক সৌদি আরবে চাকুরিচ্যুত হয়ে অবৈধ হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি একজন বাংলাদেশিকে মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই দেওয়া ও বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য গভর্নরের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের বিভিন্ন জেলে প্রায় ২৪৫ জন বাংলাদেশি বন্দী রয়েছে উল্লেখ করে তাদের মধ্যে কেউ ক্ষমার যোগ্য হলে তাকে ক্ষমা প্রদান করার জন্য গভর্নরকে অনুরোধ করেন।

রাষ্ট্রদূত আজ সকালে পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের পুলিশ প্রধান মেজর জেনারেল আবদুল্লাহ বিন মোহাম্মদ আল কুরাইশ এর সাথে বৈঠক করেন। রাষ্ট্রদূত এ সময় এ অঞ্চলে বসবাসরত বাংলাদেশী গৃহকর্মীদের যেকোন বিপদে সহায়তা করার অনুরোধ জানান। পুলিশ প্রধান বাংলাদেশি গৃহকর্মীদের সহায়তার আশ্বাস দেন ও বাংলাদেশি অভিবাসীদের প্রশংসা করেন।

ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী এ প্রদেশের দাহরানে অবস্থিত কিং ফাহাদ পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মিনারেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মাদ আল সাজ্ঞাফের সাথে বৈঠক করেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতা বৃদ্ধি ও বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি বৃদ্ধির প্রস্তাব করেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.