হৃদযন্ত্রই বিকল  ক্রিশ্চিয়ান এরিকসনের

ডেনমার্কের মিডফিল্ডার ক্রিশ্চিয়ান এরিকসনের  ইউরো কাপ খেলতে নেমে মাঠেই হার্ট অ্যাটাক। এখনো  তিনি হাসপাতালে, তবে আগের চেয়ে সুস্থ।

মাঠে  খেলা চলাকালীন হঠাৎ হৃদযন্ত্রের সমস্যা হয়েছিল। আজ রোববার স্পষ্ট করলেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকদের বক্তব্য, কেন আচমকা মাঠে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হলেন , বিষয়টি এখনো চিকিৎসকদের কাছে অস্পষ্ট ।

শনিবার ইউরো কাপের গ্রুপ বি-র ম্যাচে খেলতে নেমেছিলেন এরিকসন। ওই দিন ডেনমার্কের প্রথম ম্যাচ ছিল ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে। ম্যাচের ৪৩ মিনিটের মাথায় আচমকাই মাটিয়ে লুটিয়ে পড়েন এরিকসন। দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

চিকিৎসকদের ভাষ্য মতে, এরিকসন প্রায় চলেই গেছিলেন। বিশেষ পদ্ধতিতে ফের তার হৃদযন্ত্র চালু করা হয়। সামা্ন্য কালক্ষেপন হলে তাকে ফেরানো যেত না।

হার্ট অ্যাটাকের আগে বুকে অসহ্য ব্যথা হয় এবং এই ব্যথা কমপক্ষে পাঁচ মিনিট স্থায়ী হয়। ব্যথা সাধারণত বুক থেকে হাতে এবং পেটের ওপরের দিকে যায়। তাছাড়া কোমর, ঘাড়, গলা এবং চোয়ালেও অনুভূত হতে পারে এই ব্যথা। তবে শুধু ব্যথা নয়, সেই সাথে বুকে জ্বালাও হয় অনেক সময়।

চিকিৎসকদের কাছে এখনো স্পষ্ট নয়, কেন এরিকসনের হৃদযন্ত্র বিকল হলো। কোনোরকম সংঘর্ষে জড়িয়েও এ ঘটনা ঘটেনি। আচমকাই তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। হাসপাতালে বহু পরীক্ষা হয়েছে তার। কিন্তু এখনো কারণ বোঝা যায়নি। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সম্পূর্ণ সুস্থ হতে এরিকসনের বেশ কিছু দিন সময় লাগবে।

খেলা চলায় প্রতিবাদ

এরিকসনের ওই ঘটনার পরে সাময়িকভাবে খেলা বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। পরে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন শুনে ফের খেলা চালু করা হয়। ডেনমার্কের কোচ অবশ্য রোববার বলেছেন, তাদের জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, তারা ফের টিম মাঠে নামাতে চান কি না। তিনি রাজি হয়ে যান। কিন্তু পরে তার মনে হয়েছে, টিম মাঠে নামানো উচিত হয়নি। বস্তুত, ডেনমার্কের ফের খেলতে নামা নিয়ে দেশের ভিতর বিতর্ক শুরু হয়েছে।

একটি বিষয় নিয়ে  বিতর্কের সৃষ্ঠি হচ্ছে। এরিকসন মাঠে পড়ে যাওয়ার পর প্রায় ১৫ মিনিট পরে তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। কেন অতটা সময় অপেক্ষা করা হলো, তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.