ফুসফুস-কিডনি ও জ্বরে ভুগছেন খালেদা জিয়া

ফুসফুস ও কিডনি জটিলতার কারণে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বারবার জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ।দলের চেয়ারপারসনের সর্বশেষ অবস্থা জানাতে গিয়ে  এয়ারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এ কথা বলেন।

তিনি চিকিৎসকদের কাছ থেকে  জেনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন যে ,তার (খালেদা জিয়া) হার্টের সমস্যা আছে, যেটা তারা (চিকিৎসকরা) মনে করছেন যে, তার কিডনি ও লিভার ঠিকভাবে কাজ করছে না। যে কারণে জ্বর চলে গেলে আবারও তার জ্বর আসছে।

এভারকেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা তাদের সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করছেন। যেটা বারবার করে তারা বলছেন যে, আমাদের হাসপাতালগুলো যথেষ্ঠ সরন্জামাদি না্ থাকায়,তাকে এডভান্স সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসা করানো উচিত।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের মেডিকেল টিম  বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা তদারকি করছেন।কোভিড ও নানা জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে খালেদা জিয়া গত ২৭ এপ্রিল বসুন্ধরায় এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন। এর ৬ দিন পরে  তিনি শ্বাসকষ্ট অনুভব করলে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয় ।

পরে অবস্থার উন্নতি হলে এক মাস পর চিকিৎসকদের পরামর্শে খালেদা জিয়াকে কেবিন ফিরিয়ে আনা হয়। সিসিইউতে থাকা অবস্থায় গত ২৮ মে খালেদা জিয়া হঠাৎ জ্বরে আক্রান্ত হন। এরপর ৩০ মে তার জ্বর নিয়ন্ত্রণে আসে।

গত ১৪ এপ্রিল গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন এবং ৯ মে করোনামুক্ত হন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.