ডিজিটাল উপায়ে গাছ বিক্রি

রাস্তার পাশের দোকান ছেড়ে দিয়ে দুই তরুণের সঙ্গে অনলাইনে গাছ বিক্রি করতে শুরু করেন ইউসুফ। কয়েক দিনের মধ্যেই ইউসুফকে অবাক করে দিয়ে প্রতি দিন প্রায় ২-৩ হাজার টাকার অর্ডার আসতে শুরু করল। ফেসবুকে তাঁদের পেজের নাম চিত্রা-বৃক্ষ হাট। ইউসুফের কাছে প্রস্তাব নিয়ে যে দুই তরুণ হাজির হয়েছিলেন, তাঁদের নাম মোহাম্মদ সাবরীল রহমান ও কামরুল ইসলাম। দুজনেই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) স্নাতক। উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্নটা মূলত সাবরীলকেই উদ্যমী করেছিল।

স্নাতক চতুর্থ বর্ষে পড়ার সময় বন্ধুরা যখন উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে যাওয়া কিংবা চাকরির প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন, সাবরীল ভাবছিলেন, কীভাবে একটা স্টার্টআপ শুরু করা যায়। ২০১৮ সালে যন্ত্রকৌশলে স্নাতক শেষ করে ভাবলেন, কৃষিভিত্তিক বা পরিবেশবান্ধব কিছু করলে কেমন হয়? তখনই চিত্রা-বৃক্ষ হাটের ভাবনা মাথায় আসে।

পরিকল্পনা ছিল, গ্রাম-বাংলার খুদে ব্যবসায়ীরা যেন তাঁদের চারাগাছগুলো অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারেন, সে জন্য চিত্রা-বৃক্ষ হাটকে একটি শক্ত প্ল্যাটফর্ম হিসেবে গড়ে তোলা। এখন পরিসরটা আরও বড় করার কথা ভাবছেন সাবরীল। চিত্রা-বৃক্ষ হাটকে প্রযুক্তিনির্ভর চাষ করা গাছের এক সংগ্রহশালা হিসেবে গড়ে তুলতে চান তিনি।

চিত্রা-বৃক্ষ হাট ফেসবুক পেজটির ফলোয়ার এখন প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার। সাবরীল বলেন, “শুধু ফেসবুক পেজ নয়। এখন আমাদের নিজস্ব ওয়েবসাইট আছে। দশজন কর্মচারী আছেন। প্রতিদিন আমরা ২০-২৫টি ডেলিভারি দিচ্ছি। মাসে গড়ে প্রায় ৫ লাখ টাকার গাছের অর্ডার আসে। গত ৭-৮ মাসে আমরা অনলাইনের মাধ্যমে ৪ হাজারের বেশি অর্ডার নিয়েছি।“

Leave a Reply

Your email address will not be published.