মন্ত্রীর মেয়ে সোনাক্ষী

শৈশবে সবচেয়ে বেশি অখুশি ছিলেন সোনাক্ষী। সোনাক্ষী যেখানেই যান না কেন সব সময় বন্দুকধারী নিরাপত্তারক্ষীরা ঘুরতেন। স্কুলে, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায়, বাজারে—সব জায়গায় এই চোখে চোখে রাখাটা বেজায় বিরক্ত লাগে তাঁর! বন্ধুদের সঙ্গে এ কারণে চুটিয়ে আড্ডাও দিতে পারছেন না। বাবা মন্ত্রী। তাই কড়া পাহারা তাঁর জন্য।

সোনাক্ষী বলেন, “ আমি যখন সিক্সে পড়ি তখন আমার বাবা মন্ত্রী হলেন, আমার খুবই অস্বস্তি লাগত যে শৈশবে আমি যেখানেই যাই না কেন, আমার সঙ্গে কেউ থাকবেই। আমি স্কুলে যাচ্ছি আর একটা গাড়িভর্তি নিরাপত্তারক্ষী আমার পেছনে পেছনে ছুটছে। গোটা স্কুল কী যে ভাবত! আমি সোজা মায়ের কাছে গিয়ে বলেছিলাম, আমি স্কুলে যাব না, যতক্ষণ না এটা বন্ধ করো। তারপর এটা বন্ধ হয়।“

২০০৮ সালে ল্যাকমে ফ্যাশন উইকে র‍্যাম্পে হাঁটেন তিনি এবং তারপর আবার ২০০৯ সালেও র‍্যাম্পওয়াক করেন। ২০১০ সালে সালমান খানের সঙ্গে ‘দাবং’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয়েছিল সোনাক্ষীর । সিনেমা ও এন্ডোর্সমেন্ট থেকে তাঁর মোট আয় দাঁড়িয়েছে ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৮৪ কোটি ৭০ লাখ টাকার সমান। এর ভেতর ৪০ কোটি টাকার সম্পদ আছে তাঁর।

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.