ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রটোকল জমা গ্লোবের

আগামীকাল রোববার দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের উদ্ভাবিত করোনার টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য প্রটোকল জমা দেয়া হচ্ছে। এ তথ্য আজ শনিবার নিশ্চিত করেছেন প্রতিষ্ঠানটির গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের প্রধান ডা. আসিফ মাহমুদ।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশ মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিলে (বিএমআরসি) এ সংক্রান্ত আবেদনটি করা হবে। এর মধ্য দিয়ে দেশে কোনো টিকার ফেইজ-১-এর ট্রায়াল হতে যাচ্ছে যা আমাদের জন্য একটি মাইলফলক। বিএমআরসির অনুমোদন পেলে হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করা হবে। এর পাশাপাশি এথিক্যাল এপ্রুভালের জন্যও আবেদন করা হবে।

এর আগে গ্লোব বায়োটেককে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য প্রয়োজনীয় করোনার টিকা উৎপাদনের অনুমোদন দেয় ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। টিকা উৎপাদনের পর তা ট্রায়ালের জন্য অনুমোদন নেয়ার নিয়ম রয়েছে।

গত বছরের ২ জুলাই দেশীয় কোনো প্রতিষ্ঠান হিসেবে গ্লোব বায়োটেক প্রথমবারের মতো করোনার টিকা আবিষ্কারের ঘোষণা দেয়। গত ৫ অক্টোবর প্রাণিদেহে টিকার ট্রায়াল সফলভাবে সম্পন্ন করার কথা জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

এই টিকা হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য আইসিডিডিআর’বির সঙ্গে চুক্তি করে গ্লোব বায়োটেক, যা পরবর্তীতে বাতিল করা হয়। বিকল্প হিসেবে সিআরও বাংলাদেশের সঙ্গে হিউম্যান ট্রায়াল করতে যায় প্রতিষ্ঠানটি।

চুক্তি বাতিলের বিষয়ে বলা হয়, গত ১৪ অক্টোবর আইসিডিডিআর’বির সঙ্গে হওয়া চুক্তি অনুযায়ী, গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন ব্যানকোভিডের সিআরও (কন্টাক্ট রিসার্চ পার্সন) হিসেবে তাদের কাজ করার কথা ছিল। শর্ত অনুযায়ী, ৩০ দিনের ভেতরে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরুর কথা। কিন্তু দেড় মাস পার হলেও কাজ শুরু হয়নি।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, প্রটোকল তৈরি থেকে শুরু করে সবকিছুই আমরা করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের কোনো অগ্রগতি নেই। তারা বিদেশি সংস্থার সহযোগিতায় পরিচালিত হয় বিধায় এমনটা করেছে। স্বাভাবিকভাবেই তারা যাদের ফান্ডে চলে তাদের স্বার্থই আগে দেখবে। তাছাড়া ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রথম এবং দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়াল করার অভিজ্ঞতা নেই প্রতিষ্ঠানটির।

আইসিডিডিআর’বি আগে যত ট্রায়াল করেছে সবগুলোই তৃতীয় ধাপের। তাই এটা বুঝতে পেরেছি যে, আমাদের ট্রায়াল করার জন্য তারা উপযুক্ত সিআরও নয়। সে জন্যই তাদের জন্য আমরা আর অপেক্ষা করছি না।

এদিকে, গ্লোব বায়োটেকের নাম বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তালিকায় রয়েছে। পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অবস্থায় থাকা ১৫৬টি টিকার মধ্যে তিনটি টিকা গ্লোবের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.