নিম্নগতিতে স্পেনের তাপমাত্রা

স্পেনের তাপমাত্রা কমে হিমাঙ্কের ২৫ ডিগ্রি নিচে নেমে এসেছে। এতে স্থানীয় মানুষের জীবনযাত্রা ভীষণভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। এ অবস্থায় বয়স্ক লোকজনকে বাড়ির বাইরে বের হতে সতর্ক করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

রাজধানী মাদ্রিদের পূর্বে পার্বত্য এলাকা মোলিনা ডি অ্যারাগন ও টেরুয়েলে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে মাইনাস ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস (মাইনাস ১৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট)। স্পেনে অন্তত ২০ বছরের মধ্যে এটিই ছিল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

খোদ রাজধানীতে গতকাল মঙ্গলবার রাতের তাপমাত্রা মাইনাস ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে আসে। সেখানকার হাসপাতালগুলো এমনিতেই করোনা রোগীদের চিকিৎসায় চাপের মধ্যে রয়েছে। এতে যুক্ত হয়েছেন বরফে পিছলে গিয়ে হাড় ভেঙে ফেলা মানুষ।

রক্ত জমাট বাঁধানো ঠান্ডায় সর্বশেষ বার্সেলোনায় গৃহহীন দুই ব্যক্তি মারা গেছেন। এ নিয়ে বিরূপ আবহাওয়ায় অন্তত সাতজনের মৃত্যু হলো।প্রচণ্ড ঠান্ডায় সর্বশেষ বার্সেলোনায় দুজন মারা গেছেন। তিনটি স্থানে আরও পাঁচজন মারা গেছেন বলে জানা গেছে। তাঁদের মধ্যে দুজন মাদ্রিদে, দুজন মালাগা ও একজন জারাগোজায় মারা যান।

খোদ রাজধানীতে গতকাল মঙ্গলবার রাতের তাপমাত্রা মাইনাস ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে আসে। সেখানকার হাসপাতালগুলো এমনিতেই করোনা রোগীদের চিকিৎসায় চাপের মধ্যে রয়েছে। এতে যুক্ত হয়েছেন বরফে পিছলে গিয়ে হাড় ভেঙে ফেলা মানুষ।

হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে স্পেনের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, শুধু গত সোমবার মাদ্রিদের বিভিন্ন হাসপাতালে হাড়ভাঙার সমস্যা নিয়ে আসেন ১ হাজার ২০০ মানুষ। সহায়তা পেতে কর্তৃপক্ষের কাছে জরুরি টেলিফোন কলের ঢল পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.