ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে চায় ব্রাজিল

নিজেদের মাটিতে কোপা আমেরিকার শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে সফল হওয়ার খুব কাছে পৌঁছে গেল ব্রাজিল। পেরুকে ১-০ হারিয়ে তিতের শিষ্যরা পেল আসরের ফাইনালের টিকিট।মঙ্গলবার সকালে রিও দে জেনেইরোর নিলতন সান্তোস স্টেডিয়ামে কোপার প্রথম সেমিফাইনালে ১-০ গোলে জিতেছে নেইমাররা।

কোপার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল কোয়ার্টার ফাইনালে ১০ জন নিয়েও চিলিকে একই ব্যবধানে হারিয়েছিল।ওই ম্যাচেও পার্থক্য গড়ে দিয়েছিলেন পাকেতা।বল দখলে এগিয়ে থাকা ব্রাজিল আক্রমণেও দেখায় প্রাধান্য এবং গোলমুখে তাদের নেওয়া ১৫ শটের আটটি ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে, পেরু গোলমুখে সাতটি শট নিয়ে মাত্র দুইটি রাখতে পারে লক্ষ্যে।

আক্রমণাত্মক  শক্তিশালী ব্রাজিলের বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে ভালোই  প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তোলে পেরু। কিন্তু স্বাগতিকদের রক্ষণে ফাটল ধরানো অসম্ভব ছিল। ফলে আরও একবার হার স্বীকার করে সেমি থেকেই বিদায় নিতে হলো তাদের।গতবারের ফাইনালে নিজেদের মাঠে পেরুকে ৩-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ব্রাজিল।ওই লড়াইয়েও পাত্তা পায়নি পেরুভিয়ানরা। ৪-০ গোলে তাদেরকে বিধ্বস্ত করেছিলেন নেইমার-থিয়াগো সিলভারা।

ম্যাচের লাগাম ধরে ফেলা ব্রাজিল অষ্টম মিনিটের শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত। পাকেতার পাসে রিচার্লিসন ডি-বক্সে ঢুকে পেরুর গোলরক্ষক পেদ্রো গালেসেকে কাটিয়ে যান। তবে বল কিছুটা দূরে চলে যাওয়ায় তিনি ফাঁকা জালে শট নিতে পারেননি।পাঁচ মিনিট পর কাসেমিরোর দূরপাল্লার জোরালো ফ্রি-কিক সোজাসুজি থাকলেও ঠিকমতো লুফে নিতে ব্যর্থ হন গালেসে। আলগা বল মিডফিল্ডার এভারতন কাজে লাগাতে না পারলে বেঁচে যায় পেরু। দুই মিনিট পর তার আরেকটি প্রচেষ্টা সাফল্যের মুখ দেখেনি।

হতাশা ঝেড়ে ফেলে ৩৫তম মিনিটে এগিয়ে যায় রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন নেইমার। পায়ের জাদুতে প্রতিপক্ষের লেগে থাকা খেলোয়াড়দের ফাঁকি দিয়ে বাঁ প্রান্ত থেকে খুঁজে নেন অরক্ষিত পাকেতাকে। বাকিটা সারতে কোনো ভুল করেননি তিনি।প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারত ব্রাজিল। নেইমারের কাছ থেকে বল পেয়ে এভারতন দূরের পোস্টে ক্রস করেন। কিন্তু লাফিয়ে ওঠা রেনান লোদির হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

দ্বিতীয়ার্ধে গোলের জন্যে মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে পেরু এবং বেশ কয়েকটি সুযোগও তৈরি করে তারা। অন্যদিকে, ব্রাজিল রক্ষণ জমাট রেখে বেছে নেয় পাল্টা-আক্রমণের কৌশল।

আগামী ১১ জুলাই মারাকানা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে আসরের ফাইনাল। সেদিন আর্জেন্টিনা অথবা কলম্বিয়াকে মোকাবিলা করবে ব্রাজিল। এই দুই দল আগামীকাল বুধবার দ্বিতীয় সেমিতে পরস্পরের মুখোমুখি হবে।তবে ব্রাজিল ফাইনালে আর্জেন্টিনাকেই প্রতিদন্দ্বি দেখতে চায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *