পুলিশ বক্সের সামনে বোমা

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় পুলিশ বক্সের সামনে বোমা রাখা হয়েছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। দুষ্কৃতকারী বা জঙ্গিগোষ্ঠী বোমাটি সেখানে রেখে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, “আমরা ধারনা করছি নাশকতা সৃষ্টির জন্য এই কাজটি করা হয়েছে, দ্রুত  শনাক্ত ও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে  ”।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, “বোমা উদ্ধার ও নিষ্ক্রিয় করার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। তবে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। কে বা কারা কী উদ্দেশ্যে সেখানে রিমোট কন্ট্রোলচালিত শক্তিশালী বোমাটি রেখেছিল, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে রহস্য উদ্‌ঘাটনের চেষ্টা চলছে। “

মহাসড়কের আশপাশের সিসি ক্যামেরার কিছু ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। সেগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, ডিএমপির বম্ব ডিসপোজাল ইউনিটও ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছে, তারাও বিষয়টি পর্যালোচনা করছে। জেলা পুলিশসহ বিভিন্ন সংস্থা এ ঘটনায় কাজ করছে।আট লেন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় বাস-বের অংশে (গাড়ি থামার সড়ক) দুটি ট্রাফিক পুলিশ বক্স রয়েছে। একটি ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শকের এবং অপরটি ট্রাফিক সার্জেন্ট ও ট্রাফিক পুলিশের সদস্যদের বসার জন্য।

ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মো. আসিফ হোসেন  বলেন, “সেখানে দায়িত্ব পালনকালে বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এক ব্যক্তি প্লাস্টিকের ব্যাগ পড়ে থাকার বিষয়টি জানান। তিনি কাছে গিয়ে দেখতে পান, ব্যাগের ওপর একটি ঝুটের কাপড় রাখা। ব্যাগের ওপর থেকে কাপড় সরাতেই সেখানে দেখতে পান, ম্যাচ লাইটারে গ্যাস ভরার মতো কয়েকটি বোতলের সঙ্গে স্কচটেপ মোড়ানো এবং তার প্যাঁচানো। তিনি বোমাসদৃশ বস্তু দেখতে পেয়ে ট্রাফিক বক্সের ভেতর থেকে সবাইকে সরিয়ে দেন এবং বিষয়টি পুলিশ কন্ট্রোল রুমকে জানান।“

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *