চীনের টিকা আসছে বাংলাদেশে

চীনের সিনোফার্ম থেকে ৫০ লাখ টিকা জুনে বাংলাদেশে আসছে। তিন মাসে সিনোফার্মের কাছ থেকে দেড় কোটি টিকা কিনতে দুই পক্ষ চুক্তি সই করেছে। দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনায় বাংলাদেশ জুন, জুলাই ও আগস্ট এই তিন মাসে প্রতিবার ৫০ লাখ করে টিকা সরবরাহের অনুরোধ জানিয়েছে।

ভারতে করোনা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটায় টিকা রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এতে করে ফেব্রুয়ারিতে চালু হওয়া বাংলাদেশের গণটিকাদান কর্মসূচি মুখ থুবড়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। নভেম্বরে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি তিন কোটি ডোজ করোনাভাইরাসের টিকা কিনতে বেক্সিমকো ফার্মাকে যুক্ত করে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি করে বাংলাদেশ। দুই দফায় সেরাম ৭০ লাখ ডোজ টিকা পাঠানোর পর সেরাম রপ্তানি বন্ধ করে দিলে বাংলাদেশ বেকায়দায় পড়ে যায়। তাই দেশের পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার বিকল্প সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, “চীনের সিনোফার্মের কাছ থেকে দেড় কোটি টিকা কিনতে দুই পক্ষ তিনটি চুক্তি ও দলিল সই করছে। এগুলো হচ্ছে, তথ্য প্রকাশ না করার নন ডিসক্লোজার অ্যাগ্রিমেন্ট, টিকার প্রতিশ্রুতির লেটার অফ কমিটমেন্ট এবং কেনাকাটার চুক্তি। দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনায় বাংলাদেশ জুন, জুলাই ও আগস্ট এই তিন মাসে প্রতিবার ৫০ লাখ করে টিকা সরবরাহের অনুরোধ জানিয়েছে। চীন প্রাথমিকভাবে এতে রাজি হয়েছে বলে এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।”

চীন ১২ মে বাংলাদেশকে সিনোফার্মের পাঁচ লাখ টিকা উপহার হিসেবে দিয়েছে। পরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে ১৯ মে রাতে ফোনালাপের সময় চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই সিনোফার্মের আরও ছয় লাখ টিকা বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন  বলেন, “চীনের কাছ থেকে টিকা কেনার বিষয়ে দুই দেশের প্রতিনিধি পর্যায়ে দুই দফা ভার্চ্যুয়াল আলোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রক্রিয়াগত বিষয়গুলো ভালোভাবে এগোচ্ছে। আগামী কয়েক দিনের সব বিষয় চূড়ান্ত হবে বলে আশা রাখি।“

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *