আগামী টি-২০ বিশ্বকাপ বাংলাদেশকে নিয়ে আয়োজন করতে চায় পাকিস্তান

বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান পাপন  এশিয়ার অন্যান্য দেশের সঙ্গে যৌথভাবে আইসিসির ২০২৪-২০৩১   ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন।১৫ জুনের বোর্ড সভা শেষে নাজমুল হাসান বলেছিলেন,বিশ্বকাপের কমপক্ষে ১০টি ভেন্যু থাকতে  হয়   আর সেটা এখন বাংলাদেশের জন্য কঠিন যা বাংলাদেশের জন্য আপাতত সম্ভব নয়।তবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে কম ভেন্যু লাগে। এটা এককভাবে আয়োজনের ক্ষমতা বাংলাদেশের আছে।আর বিশ্বকাপের জন্য যৌথভাবে এশিয়ার অন্য দেশগুলোর সঙ্গে মিলে বিড করব।’

 

২০২৭ ও ২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ এশিয়ার অন্যান্য দেশের সঙ্গে যৌথভাবে আয়োজন করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে পাকিস্তান।পিসিবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানিয়েছে।পিসিবি বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাকে সহ আয়োজক হিসেবে চায় ।এ ছাড়া ২০২৫ ও ২০২৯ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি পাকিস্তান একাই আয়োজন করতে চায়। ২০২৬ ও ২০২৮ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও আয়োজনের ইচ্ছা দেশটির।

 

পিসিবির দাবি, ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য তাদের যথেষ্ট ভেন্যু রয়েছে। তাই চ্যাম্পিয়নস ট্রফি নিজের মাটিতে আয়োজনে বেশ আত্মবিশ্বাসী পাকিস্তান।করাচি, লাহোর, মুলতান ও রাওয়ালপিন্ডি তো আছেই। পেশোয়ারও নাকি দ্রুতই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কেন্দ্রে পরিণত হবে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য দরকার আট ভেন্যু। তাই সংযুক্ত আরব আমিরাতকে সঙ্গে নিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় পাকিস্তান।

পাকিস্তান সর্বশেষ বিশ্বকাপ আয়োজন করে ১৯৯৬ সালে ভারত ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে। ২০১১ সালের বিশ্বকাপেও আয়োজক দেশ ছিল পাকিস্তান। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে পাকিস্তানের ম্যাচগুলো পায় বাংলাদেশ, ভারত ও শ্রীলঙ্কা।

 

পিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আইসিসি এখন পিসিবি ও অন্যান্য দেশের আবেদন বিবেচনা করে তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। পিসিবি আশা করছে, অন্তত একটি আইসিসি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারবে, যা পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য বিরাট অনুপ্রেরণা হবে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *