আইসিইউ তে চিত্রনায়ক ফারুক

গত বছরের অক্টোবর মাসের শেষে চিকিৎসা শেষে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরেন ফারুক। এরপর থেকে তিনি সুস্থই ছিলেন। চিকিৎসকেরা আগেই বলে দিয়েছিলেন, বেশ কিছু শারীরিক জটিলতা থাকায় ফারুকের শরীর খারাপ হতে পারে। সে জন্য তিন মাস পরপর রুটিন চেকআপ করাতে হবে। ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি সেই নিয়মিত পরীক্ষা করাতে সিঙ্গাপুরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু করোনার কারণে যেতে পারেননি। অবশেষে মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে স্ত্রী ফারহানা পাঠানকে নিয়ে সেখানে যান তিনি।

নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মার্চ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে যান বরেণ্য অভিনেতা ও সাংসদ আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। পরীক্ষায় তাঁর রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপর থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থতা অনুভব করছিলেন তিনি। চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। ফারুককে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তিনি চিকিৎসাধীন লাইয়ের তত্ত্বাবধানে। আট বছর ধরে সিঙ্গাপুরে নিয়মিত চিকিৎসাসেবা নিয়ে আসছেন ফারুক।

চিকিৎসকের বরাতে এই অভিনয়শিল্পীর ছেলে রওশন হোসেন পাঠান শরৎ আজ শনিবার বিকেলে  জানালেন, ‘আব্বুর শারীরিক অবস্থা ক্রমশ উন্নতির দিকে। তাঁর আনকনসাস অবস্থা কাটছে। তিনি এখন নড়াচড়া করছেন। তবে তাঁর উন্নতি খুব ধীরগতিতে হচ্ছে।’

এর আগে ৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় ফারুকের ছেলে শরৎ বলেছিলেন, ‘১৬ দিন ধরে আইসিইউতে। ১৪ দিনে আব্বু কোনো কথা বলেননি। হালকা-পাতলা হাত-পা নাড়াচ্ছেন, কিন্তু কোনো কথাই বলছেন না। চোখ মেলেও তাকাচ্ছেন না। আব্বু অচেতন হয়ে

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *