ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করছে  “ইয়াস”

বুধবার দেশের ১৪টি উপকূলীয় জেলা এবং চর ও দ্বীপে ঘণ্টায় ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার গতিতে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা আছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে এ পূর্বাভাস দিয়ে দেশের তিনটি সমুদ্রবন্দর এবং কক্সবাজার উপকূলকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় এর গতিবেগ ঘণ্টায় ১৩০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার হতে পারে। অর্থাৎ এটি অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসেবে আঘাত করতে পারে। সে ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে বাতাসের গতিবেগ ৮০ থেকে ১২০ কিলোমিটার হতে পারে। মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর এবং জয়েন টাইফুন অ্যান্ড ওয়ার্নিং সেন্টারের পূর্বাভাসে জানা যায়।

মধ্যে সাতক্ষীরার শ্যামনগর, খুলনার কয়রাসহ কয়েকটি উপজেলায় আগে থেকেই বেড়িবাঁধগুলো ভাঙা ছিল। সেখান দিয়ে এখন বসতি এলাকা এবং মাছের ঘেরে পানি প্রবেশ করতে শুরু করেছে। প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানির উচ্চতা বাড়ছে। ঝোড়ো হাওয়ার কারণে অনেক স্থানে গাছপালা উপড়ে পড়েছে।সবাইকে সাবধানে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন দূর্যোগ মন্ত্রালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.