ডিজিটাল ব্যবসার কৌশল

বর্তমান সময়ে জমজমাট হয়ে উঠেছে অনলাইনে কেনাকাটা। করোনার কারনে সেটা আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও সামাজিক গণমাধ্যম ব্যবহার করে ব্যবসা করছেন উদ্যোক্তারা।তবে এ ব্যবসা আরো জনপ্রিয় করার বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করতে হবে।

সাধারণত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম একটি বড় প্লাটফর্ম এই ব্যবসার। ছোট পেজভিত্তিক বিক্রেতারাই লাইভে পণ্য বিক্রি করে থাকেন। এটা নিয়ে বাজারে নানা ধরনের আলোচনা-সমালোচনা থাকলেও বিপণনের দিক থেকে পদ্ধতিটি বেশ কার্যকর। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভ ভিডিও প্রচার করা হলে তার নোটিফিকেশন বা বার্তা প্রত্যেক অনুসরণকারীর কাছে পৌঁছে যায়। এই পদ্ধতি বেশ কার্যকর।

মূল্যছাড় একটি বড় কৌশল, একটি পণ্যের ২০ শতাংশ কম দামে বিক্রি করা ক্রেতাদের আকৃষ্ট করা যায়। কুপন পদ্ধতি আরেকটি কৌশল যেটা দিয়ে অধিক ক্রেতার আকর্ষণ করা যায়। এক হাজার  টাকার বেশি  পণ্যের কুপন ২০ শতাংশ কম দামে বিক্রি করা অথবা একটি পণ্য কিনলে পরবর্তী পণ্যে নির্দিষ্ট শতাংশ ছাড়ের কুপন দেওয়া। একদম এমন কাউকে না পাওয়া গেলে নিজেরাই পণ্যের কাজ ও প্রয়োজন ধরে অনুষ্ঠান তৈরি করুণ।

মানুষ অনলাইন থেকে পণ্য তখনই কেনেন, যখন তিনি পণ্যটি পেতে চান। বরং অনলাইনে কেনাকাটা করলে পণ্যকে হাতে ধরে অনুভব করার ইচ্ছা আরও বেশি থাকে। তাই যত দ্রুত সম্ভব পণ্যটি পাঠিয়ে দিলে ক্রেতাদের ওপর বেশি প্রভাব বিস্তার করা যায়। পণ্য পাঠানোর ক্ষেত্রে যোগাযোগের ধরন খুব জরুরি। যেমন ওয়েবসাইট বা অ্যাপেই জানান দেওয়া যায় পণ্যটি ঠিক কয়টার সময়, কার হাত দিয়ে ক্রেতার কাছে পৌঁছাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.