কাভার্ড ভ্যান ও মোটরসাইকেলে সংঘর্শে নিহত ১জন

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে যশোর সদর উপজেলার হুদারাজাপুর এলাকায় যশোর-মাগুরা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। যশোর সদর উপজেলায় কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে নয়ন হোসেন মোল্যা (৪৫) নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। এ সময় গুরুতর আহত হয়েছেন তাঁর ছেলে মোটরসাইকেলটির চালক জাফর মোল্যা (২৪)। নিহত নয়ন হোসেন মোল্যা যশোর সদর উপজেলার ক্ষিতিবদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন ছেলে জাফর মোল্যা, আর পেছনে বসে ছিলেন নয়ন হোসেন। বেলা ১১টার দিকে মোটরসাইকেলটি উপজেলার হুদারাজাপুর এলাকায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে একটি কাভার্ড ভ্যান মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ইট কেনার উদ্দেশ্যে শুক্রবার সকালে নয়ন হোসেন মোল্যা ও তাঁর ছেলে জাফর মোল্যা যশোর সদর উপজেলার ক্ষিতিবদিয়া গ্রামের বাড়ি থেকে সকালে মোটরসাইকেলে রওনা দেন। তাঁরা যশোর-মাগুরা মহাসড়ক দিয়ে যশোর শহরের দিকে যাচ্ছিলেন। মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন ছেলে জাফর মোল্যা, আর পেছনে বসে ছিলেন নয়ন হোসেন। বেলা ১১টার দিকে মোটরসাইকেলটি উপজেলার হুদারাজাপুর এলাকায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে একটি কাভার্ড ভ্যান মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে নয়ন হোসেন মোল্যা মহাসড়কের ওপর ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুতর আহত হন জাফর মোল্যা। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।

বারোবাজার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মেজবাহ উদ্দিন বলেন, “মোটরসাইকেলের সঙ্গে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। কাভার্ড ভ্যানটি জব্দের জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে।“

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক দেলোয়ার হোসেন খান বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই নয়ন হোসেন মোল্যা মারা যান। তাঁর ছেলে জাফর মোল্যার অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *