শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জয় টাইগারদের

আজ শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে সহজেই হারিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে জয় এসেছে ৮ উইকেটে। একাদশে ছিল তরুণদের প্রাধান্য। এক সাকিব আল হাসান আর মাহমুদউল্লাহ ছাড়া আর কোনো সিনিয়র নেই। এই জয়ের মাধ্যমে তিন ফরম্যাটেই শততম ম্যাচে জয় পেল বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে শততম ওয়ানডে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শততম টেস্ট জয় এবং আজ জিম্বাবুয়ে বিপক্ষে শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে জিম্বাবুয়ে দল ১৯ ওভারে ১৫২ রানে অল-আউট হয়ে যায়। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে জিম্বাবুয়ের দলীয় ১০ রানেই প্রথম আঘাত হানেন মুস্তাফিজুর রহমান। ওই ওভারের দ্বিতীয় বলে ছক্কা মেরে পঞ্চম বলে ক্যাচ দেন টাডিওয়ানাশে মারুমানি (৭)। আরেক ওপেনার মাধভেরেকে (২৩) ফেরান সাকিব।  বিধ্বংসী ব্যাট করছিলেন রেগিস চাকাভা। ২২ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৪৩ রান করা এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যন রান-আউট হয়ে যান।

তামিমের অনুপস্থিতিতে রেকর্ড ওপেনিং জুটি উপহার দিয়েছেন সৌম্য সরকার আর মোহাম্মদ নাঈম। রান তাড়ায় নেমে বাংলাদেশকে ভালো সূচনা এনে দিয়েছেন মোহাম্মদ নাঈম এবং সৌম্য সরকার। শুরুটা বেশ সাবধানী ছিল। চতুর্থ ওভারে এনগ্রাভার বলে তিন চার মারেন নাঈম। পঞ্চম ওভারে লুক জঙ্গুইকে মিড উইকেট দিয়ে দর্শনীয় ছক্কা মেরে হাত খোলেন সৌম্য। ৭.১ ওভারে তাদের জুটি পঞ্চাশ ছাড়িয়ে যায়। একপর্যায়ে দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড গড়ে ফেলেন দুজন। এর আগে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি ছিল ৯২।

৪৫ বলে ৪টি বাউন্ডারি এবং ২টি ছক্কায় ক্যারিয়ারের ৪র্থ ফিফটি তুলে নেন সৌম্য সরকার। অবশেষে ১০২ রানে সৌম্যর বিদায়ে ভাঙে ওপেনিং জুটি। নাঈম ৪০ বলে নিজের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নেন। এর পরেই মাহমুদউল্লাহ ১৫ রানে রান-আউট হন। উইকেটে আসেন সর্বশেষ ওয়ানডে জয়ের অন্যতম নায়ক সোহান। আজও তিনি দারুণ ব্যাট করেছেন। ১৯তম ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা মেরে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন নাঈম। ৫১ বলে ৭ চারে ৬৬* রানে অপরাজিত থাকেন নাঈম।

*ব্যাটে-বলে দারুণ পারফর্ম করে ম্যাচসেরা সৌম্য সরকার।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *