মাত্র দেড় হাজার টাকার জন্য শিশু হৃদয়কে হত্যা!

নিখোঁজের চারদিন পর রাজধানী থেকে পাওয়া যায় শিশু হৃদয়ের বস্তাবন্দী লাশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিজগে খুনি ইয়াসিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জানা যায়, মাত্র দেড় হাজার টাকার জন্য শিশু হৃদয়কে হত্যা করেছে এ পাষণ্ড!

পুলিশের কাছে ইয়াসিন স্বীকারক্তি স্বরুপ বলে, হৃদয়ের বাবা রমজানের কাছে দেড় হাজার টাকা পাওনা ছিল তার। টাকা না পাওয়াতেই হৃদয়কে জিম্মি করে এবং পরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

লাশ উদ্ধারের পর কান্নাজড়িত কণ্ঠে সন্তান হত্যার সুবিচার চান শিশু হৃদয়ের মা সোমা।

গত ২৬ তারিখ (শনিবার) লালবাগ বালুমাঠ নামক এলাকায় খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় হৃদয়। হৃদয় জগৎমহন সরকারি প্রাথমিক স্কুলের ছাত্র ছিল। হৃদয় এর বাবা এ বিষয়ে থানায় একটি ডায়েরি দায়ের করার পর অ্যাকশনে নামে পুলিশ।

এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে তারা দেখতে পায় নিখোঁজের দিন হৃদয়কে তার বাবার বন্ধু ইয়াসিন কোথাও নিয়ে যাচ্ছে। পরবর্তীতে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে ইয়াসিন হৃদয়কে হত্যার কথা স্বীকার করে। চারদিন পর কামরাঙ্গীর চরের আলিনগরে একটি বাড়ির সামনে বস্তাবন্দি অবস্থায় হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়।

খুনি ইয়াসিন ব্যবসায়িক সম্পর্কে হৃদয়ের বাবা রমজানের পারিবারিক বন্ধু হয়ে ওঠে। যদিও খুন করেও গেল চারদিন হৃদয়ের লাশ নিজের খাটের নিচে রেখে হৃদয়ের বাবা-মায়ের সাথে থানায় জিডিসহ মাইকিং করে হৃদয়কে খোঁজার মিথ্যে নাটক করে যাচ্ছিল ইয়াসিন।

হত্যার ঘটনায় হৃদয়ের বাবা রমজান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। এই খুনের ঘটনায় অন্য কারো সম্পৃক্ততা আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Are you happy ? Please spread the news

Leave a Reply

Your email address will not be published.