নিউইয়র্কে মুসলিমদের সম্প্রদায়ের ওপর হামলার ষড়যন্ত্র।

একটি ছোট মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে চারজনকে আটক করেছেন দেশটির পুলিশ। তাদের মধ্যে একজন কিশোর। তাদের তৈরি বোমা ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তাঁরা এ হামলার ষড়যন্ত্র করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, নিউইয়র্কে  ইসলামবার্গ নামের একটি মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর এই হামলার ষড়যন্ত্র করা হয়।

নিউইয়র্কে বসবাসকারী ছোট ওই সম্প্রদায় ১৯৮০ সালে একজন পাকিস্তানি ধর্মীয় নেতা প্রতিষ্ঠা করেন।

হামলার পরিকল্পনাটি ফাঁস হয়ে যায় এক স্কুলছাত্রের মাধ্যমে ।

ইসলামবার্গ সম্প্রদায়টিকে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ শিবির বলে অপপ্রচার করছিল একটি পক্ষ।

আটক ব্যক্তিদের মধ্যে কিশোর বাদে তিনজনকে আজ বুধবার আদালতে হাজির করা হতে পারে। তাঁরা হলেন অ্যান্ড্রু ক্রাইসেল (১৮), ভিনসেন্ট ভেট্রমিলে (১৯) ও ব্রায়ান কোলানেরি (২০)।

তাঁদের বিরুদ্ধে অস্ত্র রাখা ও ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ আনা হয়েছে। ১৬ বছরের কিশোরটিও অভিযোগের মুখে পড়তে যাচ্ছে।

তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের উত্তর-পশ্চিমের গ্রিস শহরে কিশোরের বাড়িতে বোমা তৈরির সরঞ্জাম পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ২৩টি অস্ত্র নানা জায়গা থেকে জব্দ করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছেন, চারজনের মধ্যে কমপক্ষে তিনজন বয়স্কাউট হিসেবে কাজ করতেন।

ইসলামবার্গ সম্প্রদায়ের লোকজন বিংহ্যামটন শহরের কাছাকাছি ক্যাটসকিল পাহাড়ের পশ্চিমে বাস করে।

আফ্রিকান-আমেরিকানরা সাধারণত অপরাধ করে পুলিশের হাত থেকে পালাতে ওই এলাকায় গা ঢাকা দিয়ে থাকে।

গ্রিস পুলিশপ্রধান প্যাট্রিক ফেলান জানান, গত শুক্রবার স্কুলে ১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরের কথোপকথন তাঁর এক সহপাঠী শুনে ফেলেছিল। সহপাঠীর মাধ্যমেই পুলিশ এই ষড়যন্ত্রের কথা জানতে পারে।

কোনো প্রমাণ ছাড়াই কট্টর ডানপন্থীদের পরিচালিত ইনফোওয়ার্সের মতো মিডিয়া আউটলেটে ইসলামবার্গ সম্প্রদায়কে ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠীর প্রশিক্ষণ শিবির বলে প্রচার চালানো হয়েছে।

আগে মসজিদে আগুন লাগানোর ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ২০১৭ সালে টেনেসি অঙ্গরাজ্যের রবার্ট ডগার্ট নামের এক ব্যক্তিকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১৫ সালে অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের জন রিটজহেইমের নামে এক ব্যক্তি মুসলিমদের অস্ত্রের হুমকি দিয়েছিলেন।

Are you happy ? Please spread the news

Leave a Reply

Your email address will not be published.