গণপরিবহণ আগের ভাড়ায় চালু ১ সেপ্টেম্বর!

করোনা মহামারির আগে বাসে নির্ধারিত ভাড়ার হার আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ফের চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে গণপরিবহণের যাত্রী, চালক, সুপারভাইজার ও টিকিট বিক্রেতাসহ সংশ্লিষ্টদের বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরিধান করতে হবে। বাসে আসনসংখ্যার অতিরিক্ত অর্থাৎ দাঁড়িয়ে কোনো যাত্রী পরিবহণ করা যাবে না। প্রতিটি কাউন্টারে হাত ধোয়ার জন্য পর্যাপ্ত সাবান পানি অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। প্রতি ট্রিপের শুরু ও শেষে যানবাহন জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

 

অবিলম্বে সরকারি এ নির্দেশনা বিজ্ঞপ্তি আকারে জানিয়ে দেওয়া হবে। যারা এ আইন অমান্য করবেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিআরটিএকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এরই মধ্যে।

মতবিনিময় সভায় সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিয়ম ও শর্ত মেনে পরিবহণ চালানোর জন্য মালিক-শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সামগ্রিক পরিস্থিতি ও জনস্বার্থ বিবেচনায় সরকার শর্তসাপেক্ষে আগামী পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে গণপরিবহণে আগের নির্ধারিত ভাড়ায় ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। হাইওয়ে পুলিশ, জেলা পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের কঠোরভাবে নিয়ম মানতে আহ্বান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহণমন্ত্রী।

এদিকে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে আগের ভাড়ায় গণপরিবহণ চলাচল করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উলস্নাহ। তিনি বলেন, সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং বিআরটিএ যে সিদ্ধান্ত দিয়েছে, সেই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমরা সম্পূর্ণ একমত পোষণ করছি।

শনিবার একথা বলেন পরিবহণ মালিক সমিতির এই নেতা। খন্দকার এনায়েত উলস্নাহ বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পরিবহণ-সংশ্লিষ্টদের মালিক সমিতির পক্ষ থেকে নির্দেশনা দিয়েছি। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী আগের ভাড়ায় চলবে। পুরো আসনে যাত্রী নেওয়া যাবে। ফলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।

 

Are you happy ? Please spread the news