করোনায় জীবন বদলেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি বিভাগে স্নাতক তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আন্নিকা তাবাসসুম। করোনায় ঘরে বসে থেকে লাখ লাখ টাকার ব্যবসা করছেন। শখের বশে অনলাইনে শুরু করেছিলেন চা–গাছের চারা বিক্রি, তারপর পণ্য হিসেবে যোগ করেন চিনিগুঁড়া চাল। সাড়াও পান ভালো।

শুরুতে ফেসবুকে বেচাকেনার জন্য একটি পেজ খুলেন, সেখানে দিনাজপুরের বিখ্যাত সুগন্ধি চাল চিনিগুঁড়ার ছবি দিতে থাকেন। এই চাল দিয়ে রান্না করা পোলাও, খিচুড়ি, তেহারির ছবিও দিতে থাকেন। ধীরে ধীরে অর্ডার আসতে শুরু করে। যুক্ত হন একটি ই-কমার্স সাইটের সঙ্গেও।

অর্ডার পেলেই চালকলে যান আন্নিকা নিজে চাল পছন্দ করেন। অনেক সময় গ্রাহককে ছবিও দেখান। তিনি দেশের বিভিন্ন জেলায় কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন। এপর্যন্ত তিনি ২০ লাখ টাকার চাল বিক্রি করেন।

আন্নিকা তাবাসসুম জানান,” শুধু টাকাটাই মুখ্য নয়, কিছু একটা করছি, নিজের এলাকার ঐতিহ্যকে অনেক মানুষের কাছে পাঠাতে পারছি, এতে অনেক আনন্দ আছে।”

চালের পাশাপাশি চা-গাছের চারাও বিক্রি করেন আন্নিকা। চায়ের চারার ছবি দেন ফেসবুক পেজে। সেই সঙ্গে ছাদে চা-গাছ লাগানোর কৌশল, কীভাবে যত্ন নিতে হবে, কত দিন পরে পাতা তুলতে পারবেন, গাছের পরিচর্যা, কচি পাতা তুলে সরাসরি গরম পানিতে দিয়ে চা খাওয়ার কথাও লিখে রাখেন। এখানেও সাড়া পান আন্নিকা।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *